সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০৬ অপরাহ্ন

ব্রেকিং
জনপ্রিয় অনলাইন সংবাদের পাতায় আপনাকে স্বাগতম
টিকাবৈষম্যের বিরুদ্ধে বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিকাবৈষম্যের বিরুদ্ধে বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিকাবৈষম্যের বিরুদ্ধে বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

Spread the love

সংবাদের পাতা ডেস্ক: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, করোনাভাইরাস মহামারি থেকে সফল পুনরুদ্ধারের জন্য অবশ্যই বৈশ্বিকভাবে টিকাদান কর্মসূচির বাস্তবায়ন প্রয়োজন। এ ক্ষেত্রে টিকার জাতীয়করণ দুর্ভাগ্যজনক। বিশ্বকে এ ধরনের টিকাবৈষম্যের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

জাতিসংঘ সদর দপ্তরে অনুষ্ঠিত শান্তির সংস্কৃতিবিষয়ক জাতিসংঘের উচ্চতর ফোরামের বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) জাতিসংঘের স্থায়ী মিশন থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

কভিড-পরবর্তী পুনরুদ্ধার কার্যক্রমের অন্তর্ভুক্তি এবং প্রতিকূলতা মোকাবেলা করে ঘুরে দাঁড়ানোর সামর্থ্য অর্জনের বিষয়টি আরো এগিয়ে নিতে শান্তির সংস্কৃতি যে রূপান্তরধর্মী ভূমিকা পালন করতে পারে তা তুলে ধরা হয় উচ্চ পর্যায়ের এই ফোরামে। দিনব্যাপী আয়োজিত কর্মসূচির মধ্যে উদ্বোধনী পর্ব ছাড়াও একটি প্লেনারি সেশন এবং ভার্চুয়াল প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কভিড অতিমারি থেকে পুনরুদ্ধারপ্রচেষ্টার অপরিহার্য উপাদান হিসেবে অবশ্যই এমন একটি শান্তিপূর্ণ পরিবেশ তৈরি করতে হবে, যেখানে জাতি, গোত্র, ধর্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে আমরা সবাই অর্থবহভাবে অবদান রাখতে পারি। আগের থেকেও ভালো অবস্থায় ফিরে যাওয়ার লক্ষ্যে কভিড-পরবর্তী পুনরুদ্ধার কার্যক্রমে শান্তির সংস্কৃতিকে ধারণ ও লালন করার কোনো বিকল্প নেই।

কভিড থেকে স্থিতিশীল পুনরুদ্ধারে শান্তির পরিবেশ বিনির্মাণের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি পুনরুদ্ধারপ্রচেষ্টায় ‘শান্তির সংস্কৃতিকে’ মূলভাগে স্থাপন করার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান। এ ছাড়া শান্তি ও উন্নয়নের পারস্পরিক গভীর আন্তঃসম্পর্কের কথা উল্লেখ করে যথাসময়ে অ্যাজেন্ডা ২০৩০ বাস্তবায়নেরও আহ্বান জানান তিনি।

এদিকে ‘শান্তির সংস্কৃতিতে সিভিল সোসাইটি সংস্থার অংশগ্রহণ’ বিষয়ক একটি ভার্চুয়াল প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এই অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জাতিসংঘের সাবেক আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল ও জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত আনোয়ারুল করিম চৌধুরী। জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা এতে প্যানেলিস্ট হিসেবে অংশ নেন।


Comments are closed.




© All rights reserved © 2018 sangbaderpata.Com
কারিগরি সহায়তায় ইঞ্জিনিয়ার বিডি