সোমবার, ১৪ Jun ২০২১, ১২:৩০ অপরাহ্ন

ব্রেকিং
জনপ্রিয় অনলাইন সংবাদের পাতায় আপনাকে স্বাগতম
নদীর ধারে বালি চাপা দেওয়া সারি সারি লাশ, ভারতের উত্তরপ্রদেশ যেন মৃত্যু উপত্যকা!

নদীর ধারে বালি চাপা দেওয়া সারি সারি লাশ, ভারতের উত্তরপ্রদেশ যেন মৃত্যু উপত্যকা!

নদীর ধারে বালি চাপা দেওয়া সারি সারি লাশ, ভারতের উত্তরপ্রদেশ যেন মৃত্যু উপত্যকা!

Spread the love

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: এ যেন মৃত্যু উপত্যকা! গঙ্গা-যমুনা দিয়ে বয়ে চলেছে সারি সারি লাশ। কোথাও আবার নদীর ধারে জমা হচ্ছে মৃতদেহ। এবার মৃতদেহ নদীর ধারে বালিতে পুঁতে ফেলার খবর মিলল ভারতের উত্তরপ্রদেশ থেকে। বালির নিচে সারি সারি এই লাশ পাওয়া গেছে উত্তরপ্রদেশের উন্নাও এলাকায়।

জানা গেছে, উত্তরপ্রদেশের রাজধানী লখনউ থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে যমুনা নদীর পাড়ে মিলেছে বহু সংখ্যক মরদেহ, যেগুলো বালিতে পুঁতে ফেলা হয়েছে। তবে এগুলো কোভিড আক্রান্তদের মরদেহ কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়।

প্রশাসনিক সূত্রে খবর, উন্নাওয়ের অন্তত দু’টি এলাকা থেকে উদ্ধার হয়েছে বালি চাপা দেওয়া লাশের সারি। একসঙ্গে বহু লাশ এভাবে সমাধিস্থ করা হয়েছে, যা দেখে অনেকে মনে করছেন- হাসপাতালগুলো করোনায় মৃত্যু লুকোতে গণকবরের রাস্তা বেছে নিয়েছে। মৃতদের পরিবার পরিজনকে না জানিয়েই মরদেহ এভাবে লোপাট করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করছেন অনেকে।

এই ঘটনায় উন্নাওয়ের জেলা প্রশাসক রবীন্দ্র কুমার জানিয়েছেন, অনেকে মরদেহ দাহ করেন না। তারা নদীর ধারে মরদেহ সমাধিস্থ করে চলে যান। এটা সেরকমই কোনও ঘটনা কিনা খোঁজ নিয়ে দেখা হচ্ছে। খবর পাওয়া মাত্র কর্মকর্তাদের ঘটনাস্থলে পাঠিয়েছি। তারা স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে আসল সত্য উদঘাটনের চেষ্টা করছেন।

করোনা রোগীদের মরদেহ কি এভাবে চাপা দিয়ে ফেলে রাখা হচ্ছে? সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের জবাবে জেলা প্রশাসক জানান, এগুলো কোভিড রোগীদের মরদেহ, এমন কোনও প্রমাণ এখনও মেলেনি। তবে সরকারি কর্মকর্তারা যাই বলুন না কেন, উত্তরপ্রদেশের বিভিন্ন এলাকায় এভাবে সারি সারি লাশ উদ্ধার হওয়ায় ব্যাপক চাপে যোগী সরকার।

উল্লেখ্য, কয়েক দিন ধরেই বিহার, উত্তরপ্রদেশের পর মধ্যপ্রদেশের নদীতেও ভাসতে দেখা গেছে মৃতদেহ। পান্না জেলার রুঞ্জ নদীর তীরে ভেসে ওঠে দু’টি মৃতদেহ। কোভিড পরিস্থিতিতে যা ফের আতঙ্ক সৃষ্টি করল। যদিও প্রশাসনের দাবি, মৃতদের সঙ্গে করোনাভাইরাসের কোনও সম্পর্ক নেই। দু’জনেরই মৃত্যুর কারণ ভিন্ন।

সূত্র: এনডিটিভি


Comments are closed.




© All rights reserved © 2018 sangbaderpata.Com
কারিগরি সহায়তায় ইঞ্জিনিয়ার বিডি